স্বাধীনতা দিবসের উপরে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণের বিস্তারিত

মাতৃভাষা অর্জনের মাস ফেব্রুয়ারীতে আমরা “অনলাইন শিক্ষা” প্ল্যাটফর্ম এর পক্ষ থেকে আমাদের প্রথম একটি প্রতিযোগিতা আয়োজন করেছিলাম। তার আগে থেকেই আমরা পরিকল্পনা করেছিলাম “অনলাইন শিক্ষা” প্ল্যাটফর্ম থেকে প্রতিমাসে গল্প বা কবিতার প্রতিযোগিতা হবে। তারই ধারাবাহিকতায় মার্চ মাসে একটি গল্পের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

 

“মাতৃভাষা দিবস” শিরোনামে প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল আমাদের ফেসবুক গ্রুপে। কিন্তু মার্চ মাসে যে প্রতিযোগিতাটি হতে যাচ্ছে, তা অনুষ্ঠিত হবে আমাদের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে। কেননা আমরা চাই আমাদের খুদে লেখকদের লেখা গল্প সবার কাছে পৌঁছে যাক। কিন্তু ফেসবুক গ্রুপটি গুটিকয়েক ব্যক্তির মধ্যে আবদ্ধ হওয়ায় তা সবার কাছে পৌঁছানো সম্ভব না বা অনেক কষ্টকর। তাই সবার কাছে পৌঁছানোর জন্য আমরা এ মাসের প্রতিযোগিতাটি আমাদের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে করবো। 

 

এছাড়াও বাংলাদেশের অনেক তরুণ কলাম লেখক সংগ্রহকারী সংস্থা আছে, যারা বাংলাদেশের আনাচে-কানাচে থেকে দক্ষ লেখক খুঁজে বের করেন এবং সেই লেখক এর লেখা বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশ করেন। তারা সাধারণত এরকম ছোট ছোট সংগঠন থেকে লেখক খুঁজে থাকে। এই দিক থেকে চিন্তা করেও ওয়েবসাইটে প্রকাশ করার উদ্দ্যেগ নেওয়া হয়েছে। আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা থেকে কারও লেখা যদি পত্রিকায় প্রকাশ পায়, তাহলে আমাদের জন্য তা হবে অনেক গর্বের। 

 

এখন আসি গল্পের টপিক সহ কিভাবে জমা দিবে ইত্যাদি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনাতে।

 

~ গল্পের টপিক কি? 

= এইবার গল্পের দুইটা টপিক নির্ধারণ করা হয়েছে। ১. ৭ই মার্চ অর্থাৎ বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ এবং ২. ২৬শে মার্চ বা স্বাধীনতা দিবস। 

এই দুই টপিকের সমণ্বয়ে বা যেকোনো একটা টপিকের উপর লিখতে হবে।    

 

~  কত তারিখের মধ্যে জমা দিতে হবে?

= গল্প জমা দিতে হবে ২৬শে মার্চ, ২০২১ এর মধ্যেই।

 

~ গল্প কত শব্দের হতে হবে?

=  গল্প মিনিমাম ৭০০ শব্দের হতে হবে। ৭০০ থেকে বেশি হলে কোন সমস্যা নেই। 

 

~ গল্প কিভাবে জমা দিবো?

= গল্প ফেসবুক গ্রুপে পোস্ট দেওয়ার মাধ্যমে জমা দিতে পারো অথবা ওয়েবসাইটেই জমা দিতে পারো যা নিম্নে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। 

 

এই ছিলো সাধারণ প্রশ্ন ও উত্তর। এছাড়াও আরও কারও কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে করতে পারো। 

 

প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণের কিছু সাধারণ নিয়মাবলীঃ

১. গল্পটা সম্পূর্ণ তোমার লেখা হতে হবে। অন্য কোথাও থেকে কপি করা হলে তাকে প্রতিযোগীতা থেকে বাতিল করা হবে। 

২. অবশ্যই মিনিমাম ৭০০ শব্দের হতে হবে। 

৩. গল্পের শুরুতে গল্পের নাম দিয়ে শুরু করতে হবে এবং শেষে তোমার নাম, ক্লাস, স্কুল নাম, উপজেলা, জেলা দিতে হবে। 

৪. ৩ নম্বর পয়েন্টের সব কিছু দেওয়া হলে তারপর তোমার সম্পর্কে ও গল্প সম্পর্কে কয়েকটা লাইন লিখতে হবে। উদাহরণ স্বরুপঃ ধরো আমি একটা গল্প লেখলাম “সূর্য অস্ত” শিরোনামে। তো কয়েকটি লাইন যা লিখতে পারো তা হচ্ছেঃ “সূর্য অস্ত” গল্পটিতে ফুটে উঠেছে আমাদের গর্বের স্বাধীনতা দিবসের দিনটির চিত্র। ৭ই মার্চের সেই বঙ্গবন্ধুর ভাষণে অনুপ্রেরণীত হয়ে বাংলার দামাল ছেলেরা ২৬শে মার্চ দেশ স্বাধীন করতে নামে। যারই ফলাফল স্বরূপ আমরা আজকে স্বাধীনভাবে বাঁচতে পারছি। এভাবে গল্পের সার সংক্ষেপ দিয়ে তোমার সম্পর্কেসহ ৩/৪ লাইন লিখতে হবে।

৫. যেহেতু এইবার তোমাদের লেখা বিভিন্ন শ্রেণীর লোকেরা দেখবে, সুতরাং লেখায় বানান ভুল না করায় উত্তম হবে।

৬.  গল্প এমন ভাবে লিখতে হবে যাতে একজন পাঠক তোমার গল্প পড়ে সন্তুষ্ট হয়। ( প্যারা আকারে লিখতে পারো)

৭. চাইলে ছবি এড করতে পারো বা আমরা করে দিবো( এইটা নিয়ে চিন্তার কিছু নেই)

 

এই গুলো ছিলো সাধারণ নিয়মাবলী। *তবে কতৃপক্ষ যেকোনো পরিবর্তনের অধিকার রাখে এবং কতৃপক্ষের নেওয়া সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত  সিদ্ধান্ত বলে গণ্য হবে। 

 

ওয়েবসাইট গল্প জমা দেওয়ার ধাপসমূহঃ

ধাপ ০১। তোমার লেখা গল্প কপি করে www.onlinesikkha.com ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। ওয়েবসাইট সম্পূর্ণ লোডিং নেওয়ার পর “Online Sikkha” এর পাশে থ্রি ডট অইকন দেখতে পাবে, সেখানে ক্লিক করতে হবে। 

ধাপ ০২। সেখান থেকে “গল্প জমা দিন” অপশনে ক্লিক করতে হবে।

ধাপ ০৩। তারপর সেখানে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে গল্প জমা দিয়ে সাবমিট করতে হবে। 

তোমার কাজ শেষ। ২৪ ঘন্টার মধ্যে তোমার গল্প ওয়েবসাইটে এপ্রুভ না হলে, আমাদের ফেসবুক গ্রপে অবশ্যই পোস্ট দিবে যে গল্প এপ্রুভ হয় নাই। অথবা গল্প জমা দিয়ে সাথে সাথে পোস্ট দিতে পারো। এতে তাড়াতাড়ি এপ্রুভ হবে। 

 

        

6 thoughts on “স্বাধীনতা দিবসের উপরে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণের বিস্তারিত”

  1. তারমানে এবার শুধু বিচারকবৃন্দ বিজয়ী নির্বাচন করবেন।লাইক কমেন্টের উপর নির্ভর করবে না?

    Reply

Leave a Comment